Connect with us

Apps

যেসব অ্যাপ ও ওয়েবসাইট এখনও চীনে নিষিদ্ধ

Published

on

নিজস্ব প্রতিবেদক, টেক এক্সপ্রেস:
ভারত ৫৯ চীনা অ্যাপ ব্লক করে সম্প্রতি আলোচনায় এসেছে। তবে চীনও কম যায় না। বহু আগে থেকেই বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যাপ ও ওয়েবসাইটগুলো ব্লক করে রেখেছে তারা। তাদের ইন্টারনেট সেন্সরশিপ বেশ কঠোর বলে তা চীনের দ্য গ্রেট ফায়ার ওয়াল নামেও পরিচিত।

চীনে যেসব অ্যাপ ও ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ:

১. গুগল : সার্চ ইঞ্জিন বলতে এখন যা বুঝায় তা হলো গুগল। বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই সার্চ ইঞ্জিনটি চীনে ২০১০ সাল থেকে
আর চীনে ব্যবহার করা যায় না। দেশটিতে গুগলের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হয় বাইদু।

২. ফেইসবুক : স্যোশাল মিডিয়া বলতে এখন বুঝায় ফেসবুক। আর গত ২০০৯ সালেই ফেইসবুক বন্ধ করে দেয় চীন সরকার। ফলে দেশটির বাসিন্দারা ফেইসবুকের বিকল্প হিসেবে উইচ্যাট ব্যবহার করেন। তবে কেউ ভিপিএন দিয়ে ফেইসবুক চালালে তা অবৈধ বলে গণ্য হয় না।

৩. টুইটার : চীনে মাইক্রোব্লগিং সাইটটি ২০০৯ সাল থেকেই ব্লক। চীনে টুইটারের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা হয় উইবো।

৪. ইউটিউব : সর্বপ্রথম ২০০৭ সালে ৫ মাসের জন্য বন্ধ রাখা হয় ইউটিউব। এর পরে ২০০৯ সালে আবারও বন্ধ করা হয় ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্মটি। চীনে ইউটিউবের চাহিদা পূরণে রয়েছে ই-কমার্স জায়ান্ট আলিবাবার তৈরি ইউকো ডটকম ও টেনসেন্ট ভিডিও।

৫. ইনস্টাগ্রাম : ফেইসবুক মালিকানাধীন ইনস্টাগ্রাম চীনে ব্লক ২০১৪ সাল থেকে। চীনা প্রযুক্তি কোম্পানি টেনসেন্টের উইচ্যাটই সেখানে ইনস্টাগ্রামের বিকল্প।

৬. জিমেইল : গুগলের ইমেইলে সেবাটি চীনের কোনো এলাকা থেকেই ব্যবহার করা যায় না।

৭. হোয়াটসঅ্যাপ : চীনে হোয়াটসঅ্যাপও নিষিদ্ধ। ২০১৭ সাল থেকে সেখানে হোয়াটস অ্যাপ বন্ধ। দেশটিতে হোয়াটসঅ্যাপের বিকল্প হিসেবে কিউকিউ ব্যবহৃত হয়।

৮. গুগল ম্যাপস : গুগলের অন্যান্য সেবার মতো গুগল ম্যাপসও চীনে বন্ধ। বাইদু সার্চ ইঞ্জিনের তৈরি ম্যাপই ব্যবহৃত হয় দেশটিতে।

৯. কোরা : বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর জানানোর সাইট কোরাও বন্ধ করেছে চীন সরকার। এর বদলে সেখানে ব্যবহৃত হয় ঝিহু।

১০. টিন্ডার : চীন থেকে ডেটিং সাইট টিন্ডারেও প্রবেশ করা যায় না। চীন এর বিকল্প হিসেবে আছে মমো অ্যাপ।

Continue Reading
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Apps

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে একাধিক সুবিধা যুক্ত করছে গুগল

Published

on

টেক এক্সপ্রেস ডেস্ক:
অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে চলা স্মার্টফোনের জন্য নতুন ৫টি সুবিধা যুক্ত করতে যাচ্ছে গুগল। এর ফলে মেসেজেস অ্যাপে পাঠানো বার্তা সম্পাদনার পাশাপাশি ফোন থেকেই গাড়ি চালু, লক ও আনলক করা যাবে। আসুন দেখে নিই কী থাকছে নতুন ৫ সুবিধায়-

মেসেজেস অ্যাপে বার্তা সম্পাদনা
অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন থেকে খুদেবার্তা আদান-প্রদানের জন্য জনপ্রিয় মাধ্যম গুগলের মেসেজেস অ্যাপ। কিন্তু নানা কারণে বার্তা পাঠানোর ক্ষেত্রে বানান ভুল কিংবা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাদ পড়ে যায়। এ সমস্যা সমাধানে মেসেজেস অ্যাপে পাঠানো বার্তা সম্পাদনা করার সুবিধা চালু করছে গুগল। এর ফলে বার্তা পাঠানোর ১৫ মিনিটের মধ্যে তা সম্পাদনা করা যাবে।

ইনস্ট্যান্ট হটস্পট
খুব শিগগিরই অ্যান্ড্রয়েড ফোনে যুক্ত হবে ইনস্ট্যান্ট হটস্পট সুবিধা। এর মাধ্যমে আঙুলের মাত্র একটি স্পর্শেই ফোনের হটস্পটে অ্যান্ড্রয়েড ট্যাবলেট ও ক্রোমবুক যুক্ত করা যাবে।

আপডেটেড গুগল হোম ফেভারিট উইজেট
হালনাগাদ গুগল হোম ফেভারিট উইজেটের মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা তাদের ফোনের স্ক্রিনে সহজেই গুগল হোম ফেভারিট উইজেট যুক্ত করতে পারবেন। এর ফলে গুগল হোম অ্যাপ চালু না করে ফোনের পর্দা থেকেই সহজে স্মার্ট হোম যন্ত্র নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

ডিজিটাল কার কি
ডিজিটাল কার কি সেবার পরিধি বাড়াচ্ছে গুগল। খুব শিগগিরই এ সুবিধাটি মার্সিডিজ বেঞ্জ ও পোলেস্টার গাড়িতে ব্যবহার করা যাবে। ডিজিটাল কার কি ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সাহায্যেই গাড়ি চালু, লক ও আনলক করা যাবে।

নতুন ইমোজি
অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জিবোর্ডে আরো নতুন ইমোজি যোগ করছে গুগল। ইমোজি কিচেনে আরো নতুন কম্বিনেশন ব্যবহারের সুযোগ পাবেন ব্যবহারকারীরা।

Continue Reading

Apps

বিশ্বজুড়ে লাইকির সদস্য সংখ্যা ১০ কোটির বেশি

Published

on

নিউজ ডেস্ক:
ব্যবহারকারীদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশ এবং তাদেরকে বিনোদন ও শিক্ষার মাধ্যমে বিকশিত করার লক্ষ্য নিয়ে পঞ্চম বছরে পা দিয়েছে জনপ্রিয় স্বল্পদৈর্ঘ্য ভিডিও অ্যাপ লাইকি। তরুণদের মাঝে ব্যাপক জনপ্রিয় এ ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্ম সম্প্রতি চতুর্থ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেছে।

বর্তমানে লাইকি বিশ্বজুড়ে ১০ কোটিরও বেশি সদস্যর একটি বৃহৎ পরিবার। বাংলাদেশে এই অ্যাপটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হয় ২০১৯ সালের জুলাইয়ে। প্রতিষ্ঠার পর থেকেই নিজেদের মেধা ও প্রতিভা প্রকাশের মাধ্যম হিসেবে সৃজনশীল নেটিজেনরা লাইকি’কে তাদের সবচেয়ে পছন্দের অ্যাপ হিসেবে গ্রহণ করেছে।

ব্যবহারকারীদের সুপ্ত প্রতিভা প্রকাশে উৎসাহ দেওয়ার পাশাপাশি লাইকি ব্যবহারকারীদের জন্য বিভিন্ন সুযোগ তৈরি ও শিক্ষার মাধ্যমে বিনোদন ও শিক্ষামূলক বিষয়ে বিভিন্ন ক্যাম্পেইন আয়োজন করেছে।

প্ল্যাটফর্মে মেধাবী সৃজনশীল ব্যবহারকারীদের চিহ্নিত করতে ব্র্যান্ডটি ‘লাইকি ট্যালেন্টস’ শীর্ষক একটি ক্যাম্পেইন চালু করে, যেখানে প্রায় ৯৪৯ মিলিয়ন মানুষ অংশগ্রহণ করেছে। বাংলাদেশে লাইকি’র শিক্ষামূলক #স্টেপস২লার্ন ক্যাম্পেইনে এ পর্যন্ত সাড়ে চার মিলিয়নেরও বেশি মানুষ অংশগ্রহণ করেছে।

Continue Reading

Apps

৬ দিনেই ধূমপান ছাড়াবে এই অ্যাপ

Published

on

নিউজ ডেস্ক:
শিরোনাম দেখে চোখ কপালে ওঠার উপক্রম হলেও এমনটাই ঘটেছে। কেউ যদি রাজী থাকেন, তাহলে তাকে ৬ দিনের মধ্যেই ধূমপান ছাড়তে সাহায্য করবে বলে দাবী করেছে কোয়াইট শিউর নামের অ্যাপের নির্মাতারা।

অ্যাপটির নির্মাতারা বলছেন, ধূমপান ছাড়ার বেশিরভাগ উপায় সঠিক নয়। আবার কিছু ক্ষেত্রে তা সঠিক হলেও কার্যকর নয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ধূমপান ছাড়ানোর জন্য সংযম থেকে শুরু করে ওষুধ- এমন নানা রাস্তার কথা বলা হয়। কিন্তু কিছু দিন যেতে না যেতে ধূমপায়ীরা এই ধরনের পদ্ধতিতে ক্লান্ত হয়ে পড়েন। ওষুধ, নিকোটিন গামের মতো উপায় খুব সহজেই ব্যর্থ হয়। মাত্র ৪ থেকে ১০ শতাংশ মানুষ এই উপায় ব্যবহার করে ধূমপান ছাড়তে সফল হয়েছেন।

কিন্তু যদি কেউ ধূমপান ছাড়তে চান, সেটা সম্ভব। তারা একেবারে অন্যরকম পদ্ধতিতে ধূমপান ছাড়িয়ে দিবেন। এটি এমনই এক নতুন পদ্ধতিতে যার মাধ্যমমে যে কোনও ধূমপায়ীই অল্প কয়েক দিনেই এই অভ্যাস ত্যাগ করতে পারবেন বলেও দাবী নির্মাতাদের।স্ট্যানফোর্ড, আইআইটি এবং আইআইএম-এর ছাত্ররা মিলে তৈরি করেছেন এই অ্যাপটি। তারা জানিয়েছেন, মূলত ‘সিবিটি’ বা ‘কগনিটিভ বিহেভিয়রাল থেরাপি’র মাধ্যমে ধূমপানের অভ্যাস ছাড়ানোর কাজ করেন তাঁরা। নিজেদের ওয়েবসাইটে তাঁরা জানিয়েছেন, প্রতিদিন এক থেকে দেড় ঘণ্টা এই অ্যাপে সময় কাটাতে হবে। কিছু লেখা পড়তে হবে, কয়েকটি ভিডিও দেখতে হবে আর কিছুক্ষণ শরীরচর্চা করতে হবে। এতেই নাকি যে কোনও ধূমপায়ী ত্যাগ করে ফেলতে পারবেন ধূমপানের অভ্যাস।

এছাড়াও এই অ্যাপে ধূমপানের খারাপ দিকগুলি তুলে ধরা হবে। যদিও, শুধুমাত্র শারীরিক ক্ষতি নয়, ধূমপান করলে মানুষের কি ধরণের মানসিক পরিবর্তন হয়, সেই বিষয়েও জানাবে অ্যাপ। তাই কোয়াইটশিউর অ্যাপতিকে মনস্তাত্ত্বিক প্রোগ্রামও বলা যেতে পারে। এই অ্যাপের পিছনে ব্যবহার হওয়া বিজ্ঞান খুবই জটিল হলেও খুব সহজ উপায়ে তা এই অ্যাপে ব্যবহার করা হয়েছে। করোনাকালে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে গুগল প্লে স্টোর ও অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে এই অ্যাপ ডাউনলোড করা যাবে বলে জানিয়েছে এর নির্মাতা প্রতিষ্ঠান।

Continue Reading

Trending