Tech Express - টেক এক্সপ্রেস
Google Contact

যেভাবে কন্টাক্ট নম্বর জিমেইলে সেভ করবেন

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ফোন হারানো, চুরি হয়ে যাওয়া, নষ্ট হয়ে যাওয়া এসবই খুব স্বাভাবিক সমস্যা। তবে এইসব সমস্যার জন্য যেন আপনার প্রয়োজনীয় ডাটা, বিশেষ করে কন্টাক্ট নাম্বারগুলো হারিয়ে না যায়, সে ব্যাপারে কার্যকরী একটি পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ।

জি-মেইলের কন্টাক্ট ফিচারটির কল্যাণে আপনাকে ফোন নাম্বার হারানোর জন্য এখন আর দুশ্চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। খুব সহজ কয়েকটা ধাপ অনুসরণ করে সে কন্টাক্ট নাম্বারগুলো হারানোর ভয় থেকে মুক্তি পেতে পারেন। সেভ করে রাখতে পারেন মোবাইলের সব কন্টাক্ট নাম্বারকে জি-মেইল বা গুগল অ্যাকাউন্টে।

মোবাইল থেকে জি-মেইলে কন্টাক্ট নাম্বার সেভ করা:

অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন গুগলের একটি প্রোডাক্ট হওয়ায় এতে খুব সহজে গুগলের অন্যান্য সেবাগুলো নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। তাই একদম ফোনের সেটিংস ব্যবহার করেও এই কন্টাক্ট জি-মেইলে সেভ করার কাজটি করা যায়। আবার গুগলের অফিশিয়াল কন্টাক্ট অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমেও করা যাবে। প্রথমে আমরা সেটিংস থেকে কিভাবে করব সেটা দেখি। তারপরে অ্যাপের ব্যাপারটি দেখব।

সেটিংস এর মাধ্যমে:

ফোনের সেটিং অপশনে যান।
তারপর Account and Sync >> Add account >> Google >> Next >> Sign in
এখন আপনার জি-মেইল আইডি ও পাসওয়ার্ড দিন। জি-মেইল আইডি না থাকলে “Create Account” অপশন থেকে নতুন আইডি খুলে ফেলুন।
এরপর, Sign in >> Sync Contacts >> Finish.
স্বয়ংক্রিয়ভাবে এখন আপনার সব কন্টাক্ট নাম্বার জি-মেইলে সেভ হতে থাকবে। হয়ে গেলে Contact লেখাটির নিচে দেখবেন, Last Synced: এর পর সময় লেখা আছে।

অ্যাপের মাধ্যমে:

প্রথমে, স্মার্টফোন দিয়ে টিভি, এসি কন্ট্রোল করা থেকে শুরু করে নানা ধরণের কাজ করার জন্যেই রয়েছে অ্যাপ। একইভাবে মোবাইল থেকে জি-মেইলে সহজভাবে কন্টাক্ট সেভ করার জন্যেও রয়েছে দারুণ একটি অ্যাপ। আপনার মোবাইল থেকে সব কন্টাক্ট নাম্বার Storage বা মেমরি কার্ড/ফোন মেমরিতে এক্সপোর্ট করে নিন।

Contact >> Menu >> Export/Import >> Export to storage.
তারপর প্লে স্টোর থেকে “Google Contact” অ্যাপটি ডাউনলোড করুন।
এখন আপনার করা এক্সপোর্টেড ফাইলটি Google Contact এ ইমপোর্ট করুন।
ডাটা কানেকশন বা ওয়াইফাই অন করে কিছুক্ষণ রাখুন। নিচের দিকে একবার সোয়াইপ করুন, ওয়েটিং সার্কেলটি ঘোরা বন্ধ হয়ে গেলেই বুঝবেন কন্টাক্ট নাম্বার সব জি-মেইলে সেভ হয়ে গেছে। এখন থেকে এটিকেই কন্টাক্ট হিসেবে ব্যবহার করুন। নতুন নাম্বার এখানে সেভ করুন। তাহলে সেটিও ডাটা কানেকশন পাওয়া মাত্রই জি-মেইলে সেভ হয়ে থাকবে।

কম্পিউটার থেকে জি-মেইলে কন্টাক্ট নাম্বার সেভ করা:

যদি আপনি আপনার মোবাইল ফোনে জি-মেইল লগ ইন করতে না চান, সেক্ষেত্রে কম্পিউটারের সাহায্যেও আপনার মোবাইলের কন্টাক্টগুলো জি-মেইলে সেভ করে রাখতে পারবেন। সেক্ষেত্রেও আগের মতো করেই প্রথমে ফোনের কন্টাক্ট নাম্বারগুলো Export করে নিতে হবে।

তারপর এই এক্সপোর্ট করা vcf ফাইলটি কম্পিউটারে পার করে নিন।
এবার ব্রাউজার থেকে জি-মেইলে লগ ইন করুন।
তারপর Google Contact এ চলে যান।
এখন Menu >> More >> Import >> CSV or vCard file >> Select file.
কম্পিউটারে রাখা vcf ফাইলটি সিলেক্ট করে দিন।
ব্যাস! সব ফোনের সব কন্টাক্ট এখন সুন্দরভাবে আপনার চোখের সামনে চলে এসেছে!! এখান থেকেও নতুন নাম্বার যোগ এবং কন্টাক্ট এডিট করতে পারবেন।

গুগল কন্টাক্ট ব্যবহার বা জি-মেইলে কন্টাক্ট ব্যাকআপ রাখার সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে, হারানোর ভয় নেই। সেই সাথে যে কোন জায়গায়, যে কোন সময় ল্যাপটপ, স্মার্টফোন, ট্যাব এরকম যে কোন ডিভাইস থেকে অ্যাক্সেস! সেই সাথে সাধারণ নাম, ফোন নাম্বার বা ইমেইলের পাশাপাশি ছবি সহ বিভিন্ন তথ্য যুক্ত করে রাখার ব্যবস্থাটিও অনবদ্য।

কন্টাক্ট নাম্বারে এসব তথ্য যুক্ত করে রিমাইন্ডার, বিভিন্ন শেয়ারিং এসবের দারুণ সব সেবা নিতে পারেন গুগল থেকে। ব্যাকআপ রাখার পাশাপাশি নতুন কোন মোবাইল ফোনে জি-মেইল আইডিটি লগ ইন করলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে কন্টাক্ট রিস্টোর হয়ে যাবে।

অ্যাপ বা ওয়েবের গুগল কন্টাক্ট থেকে ম্যানুয়ালি এক্সপোর্টও করা যাবে যেকোন সময়। আর হ্যাঁ, ব্র‍্যান্ড ও অ্যান্ড্রয়েড ভার্সন ভেদে ফোনের সেটিংস এর নামগুলোর একটু তারতম্য হতে পারে। তাই কোন পয়েন্টে বুঝতে না পারলে নির্দ্বিধায় কমেন্টে প্রশ্ন করবেন।

পরিশেষে একটুখানি সতর্কবাণী। আপনার কন্টাক্ট এ থাকা নাম্বার এবং অন্যান্য তথ্য আপনার একান্তই নিজস্ব। ফোন যেরকম হাতছাড়া করেন না, একে নিরাপত্তা প্রদান করেন। জি-মেইলে যখন কন্টাক্ট নাম্বারের মতো গুরুত্বপূর্ণ জিনিস রাখবেন তখন এই অ্যাকাউন্টের ক্ষেত্রেও সেরকম করতে হবে। জি-মেইলে কন্টাক্ট নাম্বার সেভ করে রাখলে সেটির পাসওয়ার্ড যেন অন্যকারো হাতে না যায়, সেটি অবশ্যই নিশ্চিত করে নিবেন।

webadmin

Add comment

Follow us

Don't be shy, get in touch. We love meeting interesting people and making new friends.