Tech Express - টেক এক্সপ্রেস
microsoftw

মাইক্রোসফটের পাসওয়ার্ডের ঝামেলা থেকে ‘মুক্তি’র ঘোষণা

টেক এক্সপ্রেস ডেস্ক:
সাধারণ ব্যবহারকারীরা এখন চাইলে নিজস্ব অ্যাকাউন্ট থেকে সব পাসওয়ার্ড মুছে দিয়ে তার বদলে পরিচয় নিশ্চিতকারী আলাদা অ্যাপ বা অন্য সেবা ব্যবহার করতে পারবেন বলে ঘোষণা দিয়েছে মাইক্রোসফট। প্রতিষ্ঠানটি বাণিজ্যিক ক্রেতাদের জন্য পাসওয়ার্ডবিহীন অ্যাকাউন্ট সেবা চালু করেছে চলতি বছরের মার্চ মাসে।

সম্প্রতি মাইক্রোসফট ও উইন্ডোজ সেবার সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্যসেবাটি চালু করার ঘোষণা দিয়েছে ওই মার্কিন সফটওয়্যার জায়ান্ট। বিবিসি জানিয়েছে, নিজেদের “প্রায় শতভাগ কর্মী” পাসওয়ার্ডবিহীন অ্যাকাউন্ট সেবা ব্যবহার করছে বলে দাবি করেছে মাইক্রোসফট। পাসওয়ার্ডবিহীন লগইন সেবা চালু করা থাকলে, মোবাইল ফোনের ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীর আঙুলের ছাপ অথবা পরিচয় নিশ্চিত করার অন্য কোনো নিরাপদ পন্থা ব্যবহার করা যাবে। এই পদ্ধতিটি পাসওয়ার্ডের ব্যবহার থেকে অনেক বেশি নিরাপদ বলে দাবি করে আসছে মাইক্রোসফট। “কেবল আপনিই আঙুলের ছাপ দিয়ে পরিচয় নিশ্চিত করতে পারবেন অথবা মোবাইলে ঠিক সময়ে ঠিক প্রতিক্রিয়া জানাতে পারবেন” -বলেছে মাইক্রোসফট।

তবে পিন কোডের মতো দ্রুত লগইনের ফিচারগুলো উইন্ডোজ ক্রেতারা এখনও ব্যবহার করতে পারবেন বলে জানিয়েছে বিবিসি। ব্যতিক্রম হিসেবে অফিস ২০১০, এক্সবক্স ৩৬০ কনসোল এবং উইন্ডোজ ৮.১ বা আরও পুরানো অপারেটিং সিস্টেম চালিত কম্পিউটারের ক্ষেত্রে পাসওয়ার্ডের উপর নির্ভরশীলতা বজায় থাকবে। পরিচয় নিশ্চিতকারী অ্যাপ নিয়ে কোনো জটিলতা দেখা দিলে- যেমন, মোবাইল ফোন হারিয়ে গেলে বা চুরি হয়ে গেলে, অথবা আপগ্রেড করার সময় ব্যবহারকারী অ্যাপটির বিষয়ে ভুলে গেলে– জটিলতা সমাধানের উপায়ও বাতলে দিয়েছে মাইক্রোসফট। সেক্ষেত্রে – উইন্ডোজ হ্যালো ফেইশল রিকগনিশন সিস্টেম; তবে এর জন্য উপযুক্ত ল্যাপটপ বা বিশেষ ক্যামেরা লাগবে। ফিজিকাল সিকিউরিটি কি, যা কেবল যে ডিভাইসে লগইনের চেষ্টা করা হচ্ছে তাতে ব্যবহার করতে হবে। শর্ট মেসেজে সার্ভিস (এসএসএম) অথবা ইমেইল কোড। তবে, টু-ফ্যাক্টর অথেনটিকেশন প্রযুক্তির ব্যবহারকারীদের জন্য আবারও প্রবেশাধিকার পেতে দু’টি ভিন্ন পুনরুদ্ধার ব্যবস্থার প্রয়োজন হবে বলে জানিয়েছে বিবিসি।

অন্যদিকে, বিশেষ কোনো ব্যক্তির ডিভাইস হ্যাকিংয়ের জন্য এসএমএস এবং ইমেইল সাইবার অপরাধীদের বহুল ব্যবহৃত দুটি মাধ্যম বলে মন্তব্য করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি। মার্কিন প্রতিষ্ঠানটির সাম্প্রতিক ঘোষণাকে “মাইক্রোসফটের জন্য বেশ সাহসী পদক্ষেপ” বলে আখ্যা দিয়েছেন ইউনিভার্সিটি অফ সারে’র গবেষক ও অধ্যাপক অ্যালান উডওয়ার্ড। মাইক্রোসফটের পাসওয়ার্ডবিহীন লগইন প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা করছে ওই দলটি। “এটা কেবল পিসিতে লগইনের জন্য নয়, অনলাইন সেবাগুলোতে লগইনের জন্যেও এটি প্রযোজ্য” -বলেন উডওয়ার্ড। এক ব্লগ পোস্টে পাসওয়ার্ডবিহীন নতুন ব্যবস্থার ব্যাখ্যা দিয়েছে মাইক্রোসফট।

এই প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক ভাইস-প্রেসিডেন্ট ভাসু জাক্কাল বলেন, “সব অ্যাকাউন্টের জন্য পাসওয়ার্ড বানানো, মনে রাখা এবং ম্যানেজ করা আমাদের সবার জন্যই ঝামেলার কাজ”। “আমরা জটিল এবং নতুন পাসওয়ার্ড বানাবো, মনে রাখবো এবং নিয়মিত পরিবর্তন করবো এমনটাই প্রত্যাশা করে সবাই– কিন্তু কেউ এটা করতে চায় না।” সাধারণ ব্যবহারকারীরা দুর্বল পাসওয়ার্ড বানান, যা পাসওয়ার্ডের শর্তগুলো মেটালেও বিভিন্ন সাইটে ওই একই ফর্মুলা বা পাসওয়ার্ড ব্যবহারের ফলে ব্যবহারকারীকে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় ফেলে। এর ফলে, হ্যাকারদের পাসওয়ার্ড আঁচ করা সহজ হয়। ডেটা চুরি করতে একই পাসওয়ার্ড বারবার ব্যবহার করতে পারে তারা। এ প্রসঙ্গে মাইক্রোসফট বলছে, “হ্যাকাররা অনুপ্রবেশ করে না, লগইন করে”। নতুন পাসওয়ার্ডবিহীন ফিচারের শুরুতেই নোটিফিকেশন বক্স বলছে, “পাসওয়ার্ডবিহীন অ্যাকাউন্ট ফিশিং এবং পাসওয়ার্ড আক্রমণের ঝুঁকি কমায়”।

ফিচারটি চালু করার পর নিশ্চিতকরণ বক্স ব্যবহারকারীকে জানিয়ে দেয় যে, “আপনি আপনার অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা আরও বাড়ালেন এবং পাসওয়ার্ড সরিয়ে আপনার সাইন-ইন অভিজ্ঞতা আরও উন্নত করলেন”। পাসওয়ার্ডের ব্যবহারের ক্ষেত্রে মাইক্রোসফট যে সমস্যাগুলোর কথা উল্লেখ করেছে তার বেশিরভাগই সত্যি বলে জানিয়েছেন প্রফেসর উডওয়ার্ড। পাসওয়ার্ড আদতে কয়েক যুগের পুরানো ভাবনা এবং “এখন হয়তো নতুন কিছু খোঁজার সময় এসেছে” বলে মন্তব্য করেন তিনি। তবে এখনও পাসওয়ার্ডের বিকল্প হিসেবে পুরো প্রযুক্তি শিল্পের কাছে স্বীকৃৃত একক কোনো পন্থা নেই বলে জানিয়েছে বিবিসি।

webadmin

Follow us

Don't be shy, get in touch. We love meeting interesting people and making new friends.