Connect with us

Tech News

সামাজিক মাধ্যম নিয়ন্ত্রণের সক্ষমতা অর্জন করছে সরকার -মোস্তাফা জব্বার

Published

on

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজবসহ যে কোনো তথ্য নিয়ন্ত্রণের সক্ষমতা সরকার আগামী সেপ্টেম্বরেই অর্জন করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তফা জব্বার। এই খবর দেওয়ার সঙ্গে মন্ত্রী এটাও বলেছেন, ব্যক্তি স্বাধীনতা খর্ব ইচ্ছে সরকারের নেই, তবে তা যেন অন্যের ব্যক্তি স্বাধীনতা খর্ব না করে, সেটাই নিশ্চিত করবে সরকার। ফেইসবুক, ইউটিউবসহ সোশাল মিডিয়ায় গুজব ছড়ানো বন্ধে সরকার উদ্যোগী হলেও তাৎক্ষণিকভাবে তা বন্ধে সফল হচ্ছিল না।

শনিবার ঢাকার শিল্পকলা একাডেমিতে আওয়ামী লীগের প্রচার সেল আয়োজিত ‘আওয়ামী লীগের ৭০ বছর, তারুণ্যের ভাবনা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এ প্রসঙ্গ তোলেন মোস্তফা জব্বার। তিনি বলেন, ওয়েবসাইট নিয়ন্ত্রণের সক্ষমতা অর্জন করলেও ফেইসবুক-ইউটিউবে সুনির্দিষ্ট তথ্য নিয়ন্ত্রণে সক্ষমতা এতদিন আসেনি, যা একটি সমস্যা ছিল সরকারের জন্য। সমস্যা হচ্ছে যখন ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়া হয়, অথবা ভিডিও প্রচার করা হয়, সেই ক্ষেত্রে ত্ৎাক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা সম্ভব হয়ে উঠে না। এর কারণ হচ্ছে, বিশেষ করে ফেইসবুক বা ইউটিউব, এই দুটি প্রতিষ্ঠানই মার্কিন প্রতিষ্ঠান। এটা তাদের আমেরিকান কমিউনিটির স্ট্যান্ডার্ড মেনে কাজ করে থাকে। আমরা সরাসরি তাদের হস্তক্ষেপ করতে পারি না। আপনাদের জন্য সুখবর হচ্ছে, সেপ্টেম্বর মাস অতিক্রম করার পরে আমরা এই ক্ষেত্রে সরাসরি হস্তক্ষেপ করার ক্ষমতা অর্জন করব। অর্থাৎ কেউ ইচ্ছে করলেই যা খুশি তাই সোস্যাল মিডিয়াতে ব্যবহার করতে পারবে না, প্রচার করতে পারবে না। অর্থাৎ এতদিন ফেইসবুক কিংবা ইউটিউবে কোনো তথ্য আটকাতে হলে পুরো অ্যাপটিই বন্ধ করতে হত সরকারকে, সেপ্টেম্বরের পর তা না করে যে তথ্য আটকাতে চায়, শুধু তা আটকে দিতে পারবে সরকার।

মতবিনিময় সভায় তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ সোশাল মিডিয়ায় গুজব কিংবা ভুয়া তথ্যের সমস্যার দিকটি তুলে ধরেন। তিনি বলেন,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব এটি একটি বিশ্বব্যাপী সমস্যা। এটি শুধু বাংলাদেশের সমস্যা তা নয়। কম্বোডিয়ায় গিয়েছিলাম কদিন আগে, সেখানেও মূল আলোচ্য ছিল, কীভাবে এই গুজব প্রতিরোধ করা যায়। আমরা চাই, মানুষের অধিকার অবারিত থাকুক। কিন্তু মানুষের অবারিত অধিকার চর্চা করতে গিয়ে যেন অন্যের অধিকার খর্ব না হয়, কিংবা অন্যের ব্যক্তি স্বাধীনতা খর্ব না হয়, কিংবা রাষ্ট্রে হানাহানি সৃষ্টি না হয়, সমাজে অস্থিরতা না হয়, সেটা আমাদের সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে। মোস্তফা জব্বার বলেন, ২০০৮ সালে সোশাল মিডিয়া নামে কিছু ছিল না। এখন যে অবস্থায় দাঁড়িয়েছে, সোশাল মিডিয়া ছাড়া কারও দিন কাটে না। বহু খবর আছে, যেগুলো মূলধারার গণমাধ্যমে আসত না, সেগুলো সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে যাচ্ছে। মানুষের কাছে পৌঁছাচ্ছে। ইন্টারনেটে নাগরিকদের বিচরণ নিরাপদ রাখতে রাষ্ট্রের ভ‚মিকার উপর জোর দেন জব্বার।

তা করতে সরকারের উদ্যোগের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এবারের নির্বাচনে কেউ গুজব ছড়াতে সক্ষম হয়নি। ইতোমধ্যে ২২ হাজার পর্ন সাইট বন্ধ করা হয়েছে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে সমস্যা রয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই গুজব বা মিথ্যা তথ্য প্রচার করতে কিছুকিছু অনলাইন পোর্টাল আছে, যেগুলো বন্ধ করা একটু দুরূহ হয়ে যায়। অনলাইনের নিবন্ধনটা শেষ হলে, বৈধ তালিকা পেলে, বাকিগুলো আমরা বন্ধ করে দিতে পারব। ইন্টারনেট ব্যবহারে সবাইকে সচেতন ও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন জব্বার। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বোকার ফসল পোকায় খায়। অনেকে কমপ্লেইন করে, আমার আইডি হ্যাক হয়েছে, এটা হয়েছে, সেটা হয়েছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নিজে যদি সতর্ক না থাকেন, এটা আপনার পরিণতি। নিজে যদি সতর্ক থাকেন, কতগুলো বেসিক নিরাপত্তাগুলো মেনে চললে বিপদে পড়ার সম্ভাবনা থাকে না।
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য এইচ টি ইমাম, উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য মেরিনা জাহান সভায় তরুণদের নানা প্রশ্নের উত্তর দেন।

Continue Reading

Tech News

বর্তমানে লাইসেন্সধারী ইন্টারনেট সরবরাহকারী ২৬৫০

Published

on

বাংলাদেশে বর্তমানে লাইসেন্সধারী ইন্টারনেট সরবরাহকারীর সংখ্যা দুই হাজার ৬৫০টি বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

সোমবার (২৪ জুন) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য নাসের শাহরিয়ার জাহেদীর এক লিখিত প্রশ্নের উত্তরে জুনাইদ আহমেদ পলক এ কথা জনান।

এ সময় অধিবেশনে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। সোমবারের প্রশ্ন উত্তর টেবিলে উপস্থাপিত হয়।
জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে লাইসেন্সধারী ইন্টারনেট সরবরাহকারীর সংখ্যা দুই হাজার ৬৫০টি। সারা দেশে ইন্টারনেট সেবা দ্রুত বিস্তার এবং গুণগত মানসম্পন্ন ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

পদক্ষেপগুলো হলো- ১. বিটিআরসি হতে ন্যাশনওয়াইড, বিভাগীয়, জেলা ও থানা/ উপজেলা ভিত্তিক এই চার ধরনের আইএসপি লাইসেন্স দেওয়া হয়েছে। এর ফলে দেশের প্রত্যন্ত এলাকায় দ্রুত ইন্টারনেট সেবা পৌঁছানো সম্ভব হচ্ছে। ২. গুণগত মানসম্পন্ন ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গত ১১-১১-২০১৮খ্রিঃ তারিখে বিটিআরসি হতে জারি করা বিধি মোতাবেক সেবা দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে এবং আইএসপি অপারেটররা সেবা দিচ্ছে। ৩. একই এলাকায় একাধিক আইএসপি প্রতিষ্ঠানের ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। যার ফলে ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় আইএসপি অপারেটররা সেবার মান বাড়ানোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এবং গ্রাহকদের পক্ষে পছন্দানুযায়ী আইএসপি হতে সেবা নেওয়া সম্ভব হচ্ছে। ৪. আইএসপি গাইডলাইনের বিধান মোতাবেক সব আইএসপি অপারেটরকে আইআইজি প্রতিষ্ঠান হতে ব্যান্ডউইথ নেওয়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

Continue Reading

Tech News

এখন পর্নোগ্রাফিও আপলোড করা যাবে এক্স হ্যান্ডেলে

Published

on

xxx

টেক এক্সপ্রেস ডেস্ক:
এলন মাস্কের সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এক্স তার কনটেন্ট পলিসি বদলাচ্ছে। ইতিমধ্যেই ঘোষণা করা হয়েছে এবার থেকে পর্নসহ অ্যাডাল্ট কনটেন্টে কোনো বিধিনিষেধ থাকবে না এক্স হ্যান্ডলে।

সাম্প্রতিক আপডেটে সান ফ্রান্সিসকোভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে বলা হয়, পারস্পরিক সম্মতিতে হওয়া যৌনতা ও প্রাপ্তবয়স্কদের কনটেন্ট তৈরি, বিতরণ ও ব্যবহার করা যাবে। যৌন অভিব্যক্তি ভিজ্যুয়াল বা লিখিত হতে পারে। যদিও ব্যবহারকারীদের সব ধরনের অ্যাডাল্ট কনটেন্টের অনুমোদন দেওয়া হয়নি। এই তালিকা থেকে বাদ পরেছে ‘ক্ষতিকর পর্ন’।
এছাড়াও ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌনতা জাতীয় কনটেন্ট কিংবা অপ্রাপ্তবয়স্কদের যৌনতা কোনোভাবেই পোস্ট করা যাবে না। এমনকি প্রোফাইল পিকচারে অথবা ব্যানার কিংবা বাইরে থেকে দৃশ্যমান এমন কোথাও এ ধরনের কনটেন্ট ব্যবহার করা যাবে না। আগে এসব কনটেন্ট এক্স হ্যান্ডলে পোস্ট ও দেখা যেত। কিন্তু তা ছিল সাবস্ক্রিপশনভিত্তিক।

নতুন নিয়মে সাবস্ক্রিপশন ছাড়াই অ্যাডাল্ট কনটেন্ট পোস্ট করা যাবে। এজন্য ইউজারদের অ্যাপের মিডিয়া সেটিংসে গিয়ে তা চালু করতে হবে। ১৮ বছরের কমবয়সী কিংবা যারা এক্স হ্যান্ডলে নিজেদের বয়স সংক্রান্ত তথ্য দেননি তারা এ ধরনের কনটেন্ট দেখতে পারবেন না। এর মাধ্যমে এক্সের নীতি মেটার ইনস্টাগ্রাম এবং ফেসবুকের পাশাপাশি টিকটক এবং ইউটিউবের মতো প্ল্যাটফর্মগুলোর বিপরীতে দাঁড়িয়েছে।

Continue Reading

Apps

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে একাধিক সুবিধা যুক্ত করছে গুগল

Published

on

টেক এক্সপ্রেস ডেস্ক:
অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে চলা স্মার্টফোনের জন্য নতুন ৫টি সুবিধা যুক্ত করতে যাচ্ছে গুগল। এর ফলে মেসেজেস অ্যাপে পাঠানো বার্তা সম্পাদনার পাশাপাশি ফোন থেকেই গাড়ি চালু, লক ও আনলক করা যাবে। আসুন দেখে নিই কী থাকছে নতুন ৫ সুবিধায়-

মেসেজেস অ্যাপে বার্তা সম্পাদনা
অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন থেকে খুদেবার্তা আদান-প্রদানের জন্য জনপ্রিয় মাধ্যম গুগলের মেসেজেস অ্যাপ। কিন্তু নানা কারণে বার্তা পাঠানোর ক্ষেত্রে বানান ভুল কিংবা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য বাদ পড়ে যায়। এ সমস্যা সমাধানে মেসেজেস অ্যাপে পাঠানো বার্তা সম্পাদনা করার সুবিধা চালু করছে গুগল। এর ফলে বার্তা পাঠানোর ১৫ মিনিটের মধ্যে তা সম্পাদনা করা যাবে।

ইনস্ট্যান্ট হটস্পট
খুব শিগগিরই অ্যান্ড্রয়েড ফোনে যুক্ত হবে ইনস্ট্যান্ট হটস্পট সুবিধা। এর মাধ্যমে আঙুলের মাত্র একটি স্পর্শেই ফোনের হটস্পটে অ্যান্ড্রয়েড ট্যাবলেট ও ক্রোমবুক যুক্ত করা যাবে।

আপডেটেড গুগল হোম ফেভারিট উইজেট
হালনাগাদ গুগল হোম ফেভারিট উইজেটের মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা তাদের ফোনের স্ক্রিনে সহজেই গুগল হোম ফেভারিট উইজেট যুক্ত করতে পারবেন। এর ফলে গুগল হোম অ্যাপ চালু না করে ফোনের পর্দা থেকেই সহজে স্মার্ট হোম যন্ত্র নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

ডিজিটাল কার কি
ডিজিটাল কার কি সেবার পরিধি বাড়াচ্ছে গুগল। খুব শিগগিরই এ সুবিধাটি মার্সিডিজ বেঞ্জ ও পোলেস্টার গাড়িতে ব্যবহার করা যাবে। ডিজিটাল কার কি ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সাহায্যেই গাড়ি চালু, লক ও আনলক করা যাবে।

নতুন ইমোজি
অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জিবোর্ডে আরো নতুন ইমোজি যোগ করছে গুগল। ইমোজি কিচেনে আরো নতুন কম্বিনেশন ব্যবহারের সুযোগ পাবেন ব্যবহারকারীরা।

Continue Reading

Trending