Tech Express
techexpress.com.bd

যুক্তরাষ্ট্রে ব্রডব্যান্ডের ভর্তুকি নিতে ১০ লাখ পরিবারের আবেদন

নিউজ ডেস্ক:
যুক্তরাষ্ট্রে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের নিরবচ্ছিন্ন ও বিস্তৃত সেবা বিস্তারে ৩২০ কোটি ডলারের সাময়িক প্রকল্প গ্রহণ করেছে কংগ্রেস। এ প্রকল্পের আওতায় ভর্তুকি গ্রহণের জন্যে প্রায় ১০ লাখ পরিবার আবেদন করেছে। সম্প্রতি দেশটির ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশন এ তথ্য জানিয়েছে। খবর রয়টার্স।

কমিশন সূত্রে জানা যায়, দেশের ৯০০-এর বেশি ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান এ প্রকল্পে অংশ নেয়ার ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করেছে, যারা আমেরিকার নিম্নমধ্যবিত্ত কিংবা করোনার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর মধ্যে সুলভ মূল্যে বা নামমাত্র মূল্যে মাসিক ইন্টারনেট সার্ভিস প্রদান করবে এবং কম দামে ল্যাপটপ ও কম্পিউটার বিক্রি করবে।

১২ মে থেকে এ প্রকল্প চালু হয়েছে। কিছু সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান আশঙ্কা করছে, চার-ছয় মাসের মধ্যে তাদের টাকা শেষ হয়ে যাবে।

সাম্প্রতিক কিছু প্রতিবেদনের তথ্যানুসারে জানা যায়, কিছু কিছু ইন্টারনেট সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবহারকারীদের এ ভর্তুকি গ্রহণ প্রকল্পে অংশ নিতে দিচ্ছে না। এ বিষয়ে ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জেসিকা রোজেন ওরসেল বলেন, এ ধরনের কর্মকাণ্ড গ্রহণযোগ্য নয়। সেই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলোর এখনই এ পথ থেকে বের হয়ে আসা উচিত।

রোজেন ওরসেল বলেন, কিছু প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের আরো বেশি ব্যয়বহুল প্যাকেজ গ্রহণের মাধ্যমে এ প্রকল্পে অংশ নেয়ার ব্যাপারেও প্রভাবিত করছে। তিনি গ্রাহকদের এ বিষয়ে ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশনের (এফসিসি) কাছে অভিযোগ দাখিল করতে বলেন এবং অভিযোগের ভিত্তিতে সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

এক ব্লগপোস্টে ভেরাইজন কমিউনিকেশনস জানায়, যুক্তরাষ্ট্র সরকার যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে, সেখান থেকে কোনো মুনাফা অর্জনের জন্য আমরা গ্রাহকদের কোনো চাপ দিচ্ছি না। নিজেদের চাহিদা অনুযায়ী গ্রাহকরা যেন তাদের পছন্দের ইন্টারনেট প্যাকেজ ও সেবা গ্রহণ করতে পারেন, সেটিই আমাদের মূল লক্ষ্য। তবে কী পরিমাণ গ্রাহক এ প্রকল্পে অংশ নিয়েছেন সে ব্যাপারে ইন্টারনেট সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিস্তারিত কোনো তথ্য দিতে রাজি হয়নি। তবে কমকাস্ট নামের প্রতিষ্ঠানটি জানায়, তারা এখন পর্যন্ত ভালো সাড়া পেয়েছে। বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে ৩ কোটি ৩২ লাখ পরিবার রয়েছে, যারা এরই মধ্যে এ ভর্তুকি গ্রহণের জন্য উপযুক্ত।

গত জানুয়ারিতে এটিঅ্যান্ডটি জানায়, লাইফলাইন প্রকল্পে যেসব পরিবার অন্তর্গত, তাদের অর্ধেক জরুরি প্রয়োজনে ভর্তুকি প্রদানের এ প্রকল্পের সুবিধা গ্রহণ করতে পারছে। নতুন যে ব্রডব্যান্ড প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে, তার জন্য প্রতি মাসে ৮০ কোটি ডলারের প্রয়োজন হবে।

এ প্রকল্পের ব্যাপারে প্রযুক্তিবিদ ও ইন্টারনেট সেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে একটি প্রশ্ন এখনো রয়ে গেছে। প্রকল্পের জন্য যে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে, সেটি শেষ হয়ে গেলে কংগ্রেস কি এ প্রকল্প আরো বৃদ্ধি করবে? যদি বৃদ্ধি করে তবে তারা কীভাবে এর খরচ জোগাবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.