Tech Express - টেক এক্সপ্রেস
olimpiyad

প্রাচীন অলিম্পিয়া চিরস্থায়ী হবে মেটাভার্সের ডিজিটাল দুনিয়ায়

টেক এক্সপ্রেস ডেস্ক:
ডিজিটাল দুনিয়ায় প্রাচীন অলিম্পিয়া নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে গ্রিক সরকার ও মার্কিন সফটওয়্যার জায়ান্ট মাইক্রোসফট। অলিম্পিক গেইমসের আঁতুরঘরকে আসল রূপে ফিরিয়ে আনছে অগমেন্টেড রিয়ালিটি, ম্যাপ তৈরিতে ব্যবহৃত হচ্ছে আর্টিফিশাল ইন্টেলিজেন্স প্রযুক্তি।

বিবিসি জানিয়েছে, নিজস্ব প্রযুক্তি দিয়ে ফেইসবুকের কথিত ‘মেটাভার্স’ পরিকল্পনার সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বীতার পরিকল্পনা করেছে মাইক্রোসফট। সেই বৃহত্তর পরিকল্পনার অংশ হিসেবে মেটাভার্সে প্রাচীন অলিম্পিয়া নির্মাণের উদ্যোগে যোগ দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। মেটাভার্সে অলিম্পিয়ার দুই হাজার বছরের আগের রূপ দেখতে পাবেন ব্যবহারকারীরা।

সম্প্রতি পেশাদারী বৈঠকের জন্য ‘মাইক্রোফট টিমস’ এর ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি; মাইনক্রাফটসহ অন্যান্য গেইমে গেইমাররা যেন নিজেকে পুরোপুরি নিমজ্জিত করে ফেলতে পারেন এমন একটি ত্রিমাত্রিক দুনিয়ায় পরিণত করতে চাইছে মাইক্রোসফট। বিবিসি’র প্রতিবেদন বলছে, ভার্চুয়াল অলিম্পিয়া নির্মাণে গ্রিক সরকারের সঙ্গে মাইক্রোসফটের জোট বাঁধার ফলে সশরীরে উপস্থিত না থেকেও মোবাইলের অগমেন্টেড রিয়ালিটি অ্যাপ ব্যবহার করে অলিম্পিয়া ঘুরে দেখতে পারবেন আগ্রহীরা। এথেন্সের অলিম্পিক মিউজিয়ামেও মেটাভার্স অভিজ্ঞতা পাবেন দর্শকরা।

হলোলেন্স হেডসেট প্রাচীন শহরটির বর্তমান ধ্বংসস্তুপের উপর ‘ডিজিটাল ওভারলে’ বসিয়ে এর আসল রূপের স্বাদ দেবে দর্শকদের। তথ্য দেখাতে এবং বাস্তব পৃথিবীর সঙ্গে ভার্চুয়াল দুনিয়ার সমন্বয় করতে একাধিক সেন্সর এবং হলোগ্রাম প্রযুক্তি ব্যবহার করে মাইক্রোসফটের হলোলেন্স অগমেন্টেড রিয়ালিটি স্মার্টগ্লাস। প্রাচীন অলিম্পিয়ার ২৭টি স্মৃতিস্তম্বের মধ্যে ভার্চুয়াল জগতে নির্মাণ করা হবে যেগুলো, তার মধ্যে আছে মূল অলিম্পিক স্টেডিয়াম, জিউস এবং হেরার মন্দির, ও প্রাচীন গ্রিসের বিখ্যাত ভাস্কর ফিডিয়াসের কর্মস্থল।

বিবিসি জানিয়েছে, মেটাভার্সে প্রাচীন অলিম্পিয়া নির্মাণে নিজস্ব ‘এআই ফর কালচারাল হেরিটেজ’ উদ্যোগের মাধ্যমে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আইকনেম’র সঙ্গে জোট বেঁধেছে মাইক্রোসফট। প্রাচীন ও ঐতিহাসিক স্থাপনার ক্রিমাত্রিক ডিজিটাল সংস্করণ নির্মাণের অভিজ্ঞতা রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির। প্রথম অবস্থায় ক্যামেরা ও ড্রোন ব্যবহার করে মূল স্থাপনার কয়েক হাজার ছবি সংগ্রহ করেছে মাইক্রোসফট। পরবর্তীতে ওই ছবিগুলো ব্যবহার করে ডিজিটাল মডেল বানিয়েছে মাইক্রোসফটের এআই।

গ্রিক প্রধানমন্ত্রী কিরাকোস মিতসোটাকিস বলেন, “এই প্রযুক্তিগুলোর সাংস্কৃতিক তাৎপর্যের শেষ নেই। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের দর্শনার্থীরা ভার্চুয়াল জগতেই গণতন্ত্রের জন্মাস্থান, প্রাচীন অলিম্পিয়া ঘুরে দেখে ইতিহাসের অভিজ্ঞতা নিতে পারবেন।” “ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রাচীন অলিম্পিয়াকে সংরক্ষণের প্রকল্প সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের হিসেবে অত্যাশ্চর্য অর্জন; যা মনুষত্ব ও সর্বোন্নত প্রযুক্তিতে একসঙ্গে করে পুরো পৃথিবীকে উপকৃত করবে এবং পরবর্তী প্রজন্মকে নিজেদের অতীত সম্পর্কে জানার নতুন উপায় দেবে।”– মন্তব্য করেছেন মাইক্রোসফট প্রেসিডেন্ট ব্র্যাড স্মিথ।

webadmin

Follow us

Don't be shy, get in touch. We love meeting interesting people and making new friends.