Tech Express
techexpress.com.bd

দুইদিনে Movementpass ওয়েবসাইটে ব্যাপক হিট!

সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউনে জরুরি চলাচলের অনুমতি দিতে বাংলাদেশ পুলিশ কর্তৃক  চালুকৃত দুইদিনে ‌Movementpass ওয়েবসাইটে ব্যাপক হিট পড়েছে।  উদ্বোধনের দিন সকাল থেকেই এ পাস ইস্যু করতে হিমশিম খাচ্ছে পুলিশ।

দুই দিনে এ পর্যন্ত মোট ৭ কোটি ৮১ লাখ নাগরিক পুলিশের মুভমেন্ট পাস নেওয়ার জন্য ওয়েবসাইটে ঢুকেছে। এতো সংখ্যক হিটের কারণে ওয়েবসাইটটিতে আবেদনের ধীরগতিও দেখা দিচ্ছে মাঝে মধ্যে।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া) মো. সোহেল রানা গণমাধ্যমকে বিষয়টি জানান।

তিনি বলেন, বুধবার (১৪ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত ওয়েবসাইটে ৭ কোটি ৮১ লাখ হিট হয়েছে। সে হিসাবে, প্রতি মিনিটে হিট হয়েছে ২১ হাজার ৩৩৭ বার। তবে তাদের সবাই পাসের জন্য আবেদন করেনি।

গত দুই দিনে ৩ লাখ ১০ হাজার জন ব্যক্তি মুভমেন্ট পাসের জন্য আবেদন করেন। তাদের মধ্যে ২ লাখ ৫০ হাজার জনকে মুভমেন্ট পাস ইস্যু করা হয়েছে।

MovementPass
ব্যাপক হিটের কারণে “অনুগ্রহপূর্বক কিছুক্ষণ পর আবার চেষ্টা করুন। ধন্যবাদ “ আসছে মাঝে মধ্যে।

সোহেল রানা বলেন, অনেকেই সাইটে একসঙ্গে নক করছেন। এজন্য সাইটে কিছুটা ধীরগতি দেখা দেয়। তবে সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা সাইটের স্পিড বাড়ানোর কাজ করছে।

এরআগে গত মঙ্গলবার সকালে উদ্বোধনের পরপরই পুলিশের movementpass.police.gov.bd ওয়েব সাইটটিতে ঢুকতে বিড়ম্বনায় পড়তে হয় অনেককে। বার বার চেষ্টা করেও অনেকে ওয়েব সাইটে ঢুকতে পারেননি। অনেকে ঢুকতে পারলেও ৫০৪ গেটওয়ে টাইম-আউট বার্তা দেখানো হয়েছে।

গত মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজারবাগে বাংলাদেশ পুলিশ অডিটরিয়ামে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘মুভমেন্ট পাস অ্যাপ’ এর উদ্বোধন করবেন পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ।

উদ্বোধনকালে আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, মুভমেন্ট পাস ব্যবহার করে নাগরিকরা এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যেতে পারবেন। তবে এক মোবাইল নম্বর ও গাড়ি নম্বর দিয়ে একবারই পাস নেয়া যাবে। আমরা বিনা প্রয়োজনে কাউকে রাস্তায় দেখতে চাই না। প্রয়োজনে ঘরের বাইরে গেলে মাস্ক পরতে হবে এবং ঘরে ফিরে স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করবেন। আপনার মাধ্যমে যেন আপনার প্রিয়জন করোনায় সংক্রমিত না হন, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

পুলিশ সূত্র জানায়, আইসিটি উইংয়ের সমন্বয়ে এ কার্যক্রম শুরু হতে হয়। জরুরি পণ্য পরিবহন, সেবাদানসহ ব্যবসায়ী ও চাকরিজীবীদের যাচাই-বাছাই করে পাস দেওয়া হবে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মুদি দোকানে কেনাকাটা, কাঁচা বাজার, ওষুধপত্র, চিকিৎসা চাকরি, কৃষিকাজ, পণ্য পরিবহন ও সরবরাহ, ত্রাণ বিতরণ, পাইকারি/খুচরা ক্রয় পর্যটন, মরদেহ সৎকার, ব্যবসা ও অন্যান্য ক্যাটাগরিতে দেওয়া হবে এ পাস।

“যাদের বাইরে চলাফেরা প্রয়োজন কিন্তু কোনো ক্যাটাগরিতেই পড়েন না তাদের ‘অন্যান্য’ ক্যাটাগরিতে পাস দেওয়ার বিষয়ে বিবেচনা করা হবে। সড়কে কোথাও চলাচলের কারণে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হলে এ পাস দেখালেই তার পরিচয় নিশ্চিত হয়ে যেতে দেওয়া হবে। এছাড়াও কোনো ব্যক্তির বাবা-মা/পরিবারের কেউ যদি অন্য জেলায় মারা যান, তবে তিনি অ্যাপের মাধ্যমে সুনির্দিষ্ট কারণ দেখিয়ে পাসের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আবেদন যৌক্তিক হলে মুহূর্তেই তিনি পাস পেয়ে যাবেন।”

Leave A Reply

Your email address will not be published.