Tech Express
techexpress.com.bd

আপলোড করা ছবি দেখে রোগের নাম বলবে গুগল এআই

নিউজ ডেস্ক:
সাধারণত ‘টেইলর’ শব্দটি দিয়ে আমরা দর্জিই বুঝে থাকি, যিনি প্রত্যেক ক্রেতার জন্য আলাদাভাবে মাপ নিয়ে পোশাক তৈরি করেন। তবে, কেবল পোশাক তৈরিই নয়, কোনো একক ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের জন্য একেবারেই স্বকীয়ভাবে কোনো কিছু তৈরি করার বেলায়ও টেইলর শব্দটি ব্যবহৃত হয়। চিকিৎসা ক্ষেত্রেও এর প্রচলন রয়েছে এবং এই ক্ষেত্রে এআই ব্যবহারে বিশেষ অগ্রগতির কথা জানাচ্ছে গুগল।

রোগীদের আপলোড করা ছবির ওপর ভিত্তি করে ত্বক, চুল এবং নখের অবস্থা জানাতে পারবে, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নির্ভর এমন অ্যাপ আনার ঘোষণা দিয়েছে প্রযুক্তি জায়ান্ট মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি। গুগলের বার্ষিক ডেভেলপার কনফারেন্স ‘গুগল আইও’-তে উন্মোচিত ‘ডার্মাটোলজি অ্যাসিস্ট টুল’ নামের ওই অ্যাপের একটি পরীক্ষা এই বছরের শেষের দিকে চালু হওয়ার কথা জানিয়েছে তারা। ইউরোপে চিকিৎসায় ব্যবহারের অনুমতিসূচক ‘সিই’ চিহ্ন দেওয়া হয়েছে অ্যাপটিকে।

রোগীর পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে উপযুক্ত চিকিৎসাপদ্ধতি নির্ধারণের বেলায় এআই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে বলে মত দিয়েছেন একজন ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ। তবে, বিশেষ এই এআই প্রযুক্তিটি ত্বকের ২৮৮ রকম অবস্থা চিনতে পারলেও গুগল একে প্রচলিত উপায়ে রোগ নির্ণয় এবং চিকিৎসার বিকল্প হিসাবে তৈরি করেনি বলে জানিয়েছে বিবিসি। তিন বছর সময় নিয়ে তৈরি করা এই অ্যাপকে নানা ধরনের ছবি ব্যবহার করে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যে রয়েছে, রোগ নির্ণয় করা হয়েছে এমন ত্বকের ৬৫ হাজার ছবির একটি ডেটাবেইজ, লোকজন উদ্বিগ্ন ছিলেন ত্বকের ওপর এমন দাগের লাখ লাখ ছবি। পাশাপাশি, বিভিন্ন বর্ণের মানুষের সুস্থ ত্বকের বিভিন্ন শেডের হাজার হাজার ছবিও ব্যবহার করা হয়েছে প্রশিক্ষণে। অ্যাপটিতে ছবি ব্যবহারের পাশাপাশি রোগীদের অনলাইনে বেশ কয়েকটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়।

গুগল এর আগেও এ ধরনের কিছু টুল তৈরি করেছিল এবং সেগুলোর ওপর ভিত্তি করেই এই অ্যাপটি নির্দিষ্ট কয়েক ধরনের ক্যান্সার এবং যক্ষ্মার লক্ষণ চিহ্নিত করতে শিখেছে। তবে, টুলগুলির কোনোটিই মানুষের রোগ নির্ণয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদিত পদ্ধতি নয়। প্রতি বছর লোকজন গুগল সার্চ ইঞ্জিনে ত্বক, চুল এবং নখের সমস্যার জন্য প্রায় হাজার কোটি বার অনুসন্ধান করেন বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ‘ডার্মাটোলজি অ্যাসিস্ট’ অ্যাপটি এখনও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ‘ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ)’-এর অনুমোদন পায়নি।

তবে, ব্রিটিশ প্রতিষ্ঠান অপটেলাম-এর তৈরি একই ধরনের মেশিন-লার্নিং মডেল সম্প্রতি ফুসফুসের ক্যান্সার নির্ণয়ে সহকারী হিসাবে ব্যবহারের জন্য এফডিএ’র অনুমোদন পেয়েছে। সাউদাম্পটন বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যান্সার বিজ্ঞানের প্রধান অধ্যাপক টিম আন্ডারউড বলেন, এই ধরনের টুল রোগীদের আরও উপযুক্ত চিকিৎসা প্রদানের সম্ভাবনা জাগায়। তিনি বলেন, “ক্যান্সার এবং ওষুধের অন্যান্য ক্ষেত্রে এআই-এর প্রয়োগ করার ফলে রোগ নির্ণয় কী হতে পারে এবং একজন ব্যক্তিকে কী চিকিৎসা দিতে হবে তা সম্পর্কে তথ্য সহায়তা দেয়।”

Leave A Reply

Your email address will not be published.